ই-পেপার বাংলা কনভার্টার শনিবার ২২ জুন ২০২৪ ৭ আষাঢ় ১৪৩১
ই-পেপার শনিবার ২২ জুন ২০২৪
ব্রেকিং নিউজ:




কলারোয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ২৯ মে, প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত জনপদ
কলারোয়া (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা
Published : Friday, 24 May, 2024 at 4:57 PM
তৃতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলা পরিষদের নির্বাচন আগামী ২৯ মে, বুধবার। ইতোমধ্যে দিন-রাতের ব্যবধান ভুলে বিরামহীনভাবে চলছে প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকদের গণসংযোগ, পথসভা-সমাবেশ। আর প্রতিদিন দুপুর দুইটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত চলা মাইকিং প্রচারণায় সরগরম হয়ে গেছে গোটা উপজেলার গ্রামীণ জনপদ। উপজেলার সকল পথঘাট ছেয়ে গেছে পোস্টার আর ব্যানারে। প্রার্থীদের নির্বাচনী কার্যালয়গুলোও সমর্থকদের সরব পদচারণায় মুখরিত থাকছে সবসময়।   

এ নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন ৩ প্রার্থী, পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২জন।  নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ঘরানার দুই প্যানেলই মূলত: প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে । আর চেয়ারম্যান পদে তিন জন থাকলেও মূল লড়াই হবে দুই আওয়ামী লীগ নেতার মধ্যে। প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে দ্বিমুখী। এ দুই প্রার্থী হলেন:  বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাতক্ষীরা জেলা শাখার সদস্য আমিনুল ইসলাম লাল্টু (ঘোড়া প্রতীক) এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক ও কেঁড়াগাছি ইউপির টানা তিন বারের সাবেক চেয়ারম্যান এসএম আলতাফ হোসেন লাল্টু (আনারস প্রতীক)। আর দলীয় পরিচয়ের বাইরে থাকা উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেন: উপজেলার সীমান্তবর্তী হিজলদি গ্রামের ব্যবসায়ী আনারুল ইসলাম (মোটরসাইকেল প্রতীক)। যার নাম উপজেলার মানুষ এই প্রথমবার শুনলেন।  

সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলে ধারণা করা যায়, চেয়ারম্যান পদে দুই লাল্টু অর্থাৎ ঘোড়া ও আনারস প্রতীকের মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার সম্ভাবনা রয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা দুই লাল্টুর পক্ষে বিভক্ত হয়ে ভোট যুদ্ধে নেমেছেন। মাঠপর্যায়ে ঘুরে ধারণা করা যায, ভোটের ফলাফলের ক্ষেত্রে বড় ফ্যাক্টর হতে পারে জামায়াত-বিএনপি সমর্থিত ভোটারদের মনোভাব। দল দুটি কেন্দ্রীয়ভাবে উপজেলা নির্বাচন বর্জন করলেও স্থানীয় পর্যায়ে উৎসুক কিছু কর্মী-সমর্থকরা ভোট দিতে কেন্দ্রে যেতে পারেন। যদি তেমনটা হয় তবে তাদের অধিকাংশ ভোট যেদিকে বেশি পড়বে সেই প্রার্থীর ভোটের পাল্লা ভারী হবে বলে ধারণা করা যায়। অপরদিকে দলীয় পরিচয়ের বাইরে থাকা চেয়ারম্যান প্রার্থী আনারুল ইসলামের ভোট আছে কীনা তা বলতে পারেননি কেউ। নির্বাচনে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন সাতক্ষীরা জেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য, কয়লা ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান শেখ ইমরান হোসেন (তালা প্রতীক), উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম লাভলু (উড়োজাহাজ প্রতীক), অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংকার  ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব জাহিদুর রহমান খান চৌধুরী (মাইক প্রতীক) ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শেখ আসিকুর রহমান মুন্না (বই প্রতীক)। তবে কাগজে-কলমে থাকলেও আসিকুর রহমান মুন্না নির্বাচনী মাঠে নেই। তাই এপদে লড়াই হচ্ছে ত্রিমুখী। 

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পরস্পরের বিরুদ্ধে  লড়ছেন বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী শাহনাজ নাজনীন খুকু (হাঁস প্রতীক) ও সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী সেলিনা আনোয়ার ময়না (কলস প্রতীক)।  ইতোমধ্যে দুইটি প্যানেল ঘোষণা করেছে আওয়ামী লীগ ঘরানার প্রতিদ্বন্দ্বী দুুই পক্ষ। একটি প্যানেলে বর্তমান চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু, মফিজুল ইসলাম লাভলু ও সেলিনা আনোয়ার ময়না।  অপর প্যানেলে রয়েছেন এসএম আলতাফ হোসেন লাল্টু, শেখ ইমরান হোসেন ও শাহনাজ নাজনীন খুকু। আর এ দুই প্যানেলের মধ্যেই মূলত: নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে সহজেই ধারণা করা যায়। নির্বাচনে মূল প্রতিদ্বন্দ্বী দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোড়া প্রতীকের আমিনুল ইসলাম লাল্টু ও আনারস প্রতীকের আলতাফ হোসেন লাল্টু নিজ নিজ প্যানেলের জয়লাভের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 উভয়ই কলারোয়ার সার্বিক উন্নয়নকে এগিয়ে নিতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এদিকে নির্বাচনী প্রচারণায় উত্তেজনা থাকলেও উভয়পক্ষের প্রচার-প্রচারণায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর মেলেনি।  উপজেলা নির্বাচন অফিসার ওয়াহিদ মুরাদ জানান, নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ করতে সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ চূড়ান্ত। তিনি জানান, ‘কলারোয়া উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ১২টি ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ১২ হাজার ৪২৭ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৫ হাজার ৮৪৪ জন, মহিলা ভোটার ১ লাখ ৬ হাজার ৫৮২ জন, আর হিজড়া ভোটার ১জন। মোট ভোট কেন্দ্র ৭৮টি। মোট বুথ তথা ভোট কক্ষের সংখ্যা ৫২৩টি। এর মধ্যে স্থায়ী বুথ ৪৮৮টি ও অস্থায়ী ৩৫টি। কলারোয়াা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, এখন পর্যন্ত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোন ধরনের শঙ্কা  নেই। কোন ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রও নেই। সার্বিক অবস্থা স্বাভাবিক। শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু পরিবেশে নির্বাচন সম্পন্ন করতে পুলিশ সর্বোচ্চ সচেষ্ট রয়েছে বলে তিনি জানান।







সম্পাদক ও প্রকাশক : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত এবং মনিরামপুর প্রিন্টিং প্রেস ৭৬/এ নয়াপল্টন, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
পিএবিএক্স: ৪১০৫২২৪৫, ৪১০৫২২৪৬, ০১৭৭৫-৩৭১১৬৭, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ৪১০৫২২৫৮
ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
পিএবিএক্স: ৪১০৫২২৪৫, ৪১০৫২২৪৬, ০১৭৭৫-৩৭১১৬৭, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ৪১০৫২২৫৮
ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]