ই-পেপার সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪
ব্রেকিং নিউজ:




সিলেটে উপজেলা নির্বাচনে প্রস্তুত আওয়ামী লীগ, জামায়াত, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি
সিলেট জেলা সংবাদদাতা
Published : Monday, 1 April, 2024 at 3:14 PM
সিলেটে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে  তেমন সাড়া নেই আওয়ামীলীগ আর জামায়াত ছাড়া অন্য কারও মাঝে। বিএনপি ও জাতীয় পার্টি এ পর্যন্ত ভোটের মাঠে নীরবই রয়েছে।  সিলেট জেলা জুড়ে যেসব সম্ভাব্য প্রার্থী নির্বাচনী তৎপরতা চালাচ্ছেন তাদের মধ্যে বেশীর ভাগই আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী।

আগামী ৮ মে থেকে সিলেটে শুরু হচ্ছে প্রথম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। সিলেটের প্রত্যেক উপজেলায় চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ১২ উপজেলায় ৩৬ পদে নির্বাচন করতে প্রায় শতাধিক প্রার্থী মাঠে রয়েছেন।

বিগত উপজেলা নির্বাচন থেকেই বর্তমান সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না বিএনপি। ফলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরাই নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। 

সিলেট জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে ১২টিতে নির্বাচন হতে পারে আগামী মাসে। ওসমানীনগর উপজেলা পরিষদের মেয়াদ শেষ না হওয়ায় এ সময়ে নির্বাচন হবে না। ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জেলার ১২টি উপজেলার মধ্যে ৭টিতে জয়লাভ করেছিল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা।

বাকি ৫টিতে বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থীদের কাছে ধরাশায়ী হন নৌকার প্রার্থীরা। বিএনপি নির্বাচনে না এলে সদ্য সমাপ্ত সংসদ নির্বাচনের মতো উপজেলা নির্বাচনেও দলীয় প্রার্থীর সঙ্গে ভোটের লড়াই হবে আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিতদের। এই বিষয়টি মাথায় রেখেই ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ভোটের আগে এখন শুরু হয়েছে দলীয় মনোনয়ন প্রাপ্তির লড়াই। আ.লীগের পাশাপাশি দুএকটি স্থানে জাতীয় পাটি এবং জামায়াতের নেতারাও স্থানীয় নেতারাও প্রার্থী হতে পারেন। তবে সিলেটের কোথাও বিএনপির কোনো নেতাকর্মী উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য এখনও প্রচারণায় নামেননি।  

সিলেট সদর উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান জেলা আ.লীগের সহ সভাপতি আশফাক আহমদ এবার নির্বাচন না করলেও তিনি আলোচনায় রয়েছেন। এছাড়া জেলা আ.লীগের সহসভাপতি অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি প্রকৌশলী এজাজ আহমদ, জেলা আ.লীগ নেতা নূরে আলম সিরাজী, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জালাল আহমদ। বিশ্বনাথ উপজেলায় সিলেট জেলা আ.লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান এসএম নুনু মিয়া, আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন, অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলমগীর, আলতাব হোসেন, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আতাউল গণি আসাদ।

দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবু জাহিদ, জেলা আ.লীগ নেতা মো. ময়নুল ইসলাম, উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামীম আহমদ ও শামীম ইকবাল, শ্রমিকলীগ নেতা জুয়েল আহমদ। 

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, আ.লীগ নেতা আব্দুল বাছিত টুটুল, শাহ মুজিবুর রহমান জকন, নুরুল হোসেন খোকন ও আব্দুল আউয়াল কয়েস। 

বালাগঞ্জে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ.লীগ সভাপতি মোস্তাকুর রহমান মফুর ও বোয়ালজুড় ইউপি চেয়ারম্যান উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আনহার মিয়া।

কোম্পানীগঞ্জে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান শামীম আহমদ, আ.লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী দুলাল, মজির উদ্দিন, জাহাঙ্গীর আলম ও ইয়াকুব আলী।

গোয়াইনঘাট উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ, উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া হেলাল, আ.লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা লুৎফুর রহমান লেবু, যুক্তরাজ্য প্রবাসী গোলাপ মিয়া।

জৈন্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান উপজেলা আ.লীগের সভাপতি কামাল আহমদ, সাংবাদিক গোলজার আহমদ হেলাল, জাতীয় পার্টির ইসমাইল আলী আশিক ও বশির উদ্দিন। এখানে সাবে চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীনও ভোটে প্রার্থী হতে পারেন।

জকিগঞ্জে উপজেলা আ.লীগের সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান লোকমান উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মুস্তাকিম হায়দার, জেলা আ.লীগ নেতা ইশতিয়াক আহমদ চৌধুরী, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদ, প্রবাসী যুবলীগ নেতা ইফজাল আহমদ।

কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মোমিন চৌধুরী, আ.লীগ নেতা অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, মোস্তাক আহমদ পলাশ, জাহাঙ্গির আলম রানা, প্রবাসী শামীম আহমদ ও শামসুজ্জামান বাহার। এখানে জামায়াত নেতা আব্দুর রহীম প্রার্থী হতে পারেন।

বিয়ানী বাজারে বর্তমান চেয়ারম্যান স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আবুল কাশেম পল্লব, সাবেক চেয়ারম্যান উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান খান, আ.লীগ নেতা জাকির হোসেন, খছরুল হক খছরু, দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল। এখানে সাবেক চেয়ারম্যান প্রার্থী জামায়াত নেতা ফয়জুল ইসলামও প্রার্থী হচ্ছেন।

গোলাপগঞ্জে উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুর কাদির শাফি চৌধুরী এলিম, আ.লীগ নেতা হুমায়ুন ইসলাম কামাল, সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন আহমদ ও লুৎফুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা শাহিদুর রহমান জাবেদ,যুবলীগ নেতা আবু সুফিয়ান উজ্জল, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজ নজমুল ইসলামের নাম ওশোনা যাচ্ছে। 

তবে সবকটি উপজেলায় বিএনপি নির্বাচন বর্জন করলেও জাতীয় পার্টি ভূগছে প্রার্থী সংকটে। ফলে এক সময়ের ঘাটি সিলেটে জাতীয় পার্টি এ নিয়ে কঠিন সমস্যায় রয়েছে।







সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত এবং মনিরামপুর প্রিন্টিং প্রেস ৭৬/এ নয়াপল্টন, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
পিএবিএক্স: ৪১০৫২২৪৫, ৪১০৫২২৪৬, ০১৭৭৫-৩৭১১৬৭, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ৪১০৫২২৫৮
ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
পিএবিএক্স: ৪১০৫২২৪৫, ৪১০৫২২৪৬, ০১৭৭৫-৩৭১১৬৭, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ৪১০৫২২৫৮
ই-মেইল : [email protected], [email protected], [email protected]